Blog

now browsing by category

 
ডোমেইন হোস্টিং

ওয়েবসাইট বানাতে চান? স্বল্প খরচে মনের মত ডোমেইন হোস্টিং কিনুন…

ওয়েবসাইট বানাতে চান? স্বল্প খরচে মনের মত ডোমেইন হোস্টিং কিনুন… ওয়েবসাইট বানাতে চান? স্বল্প খরচে মনের মত ডোমেইন হোস্টিং কিনুন…

ওয়েবসাইট বানাতে চান? স্বল্প খরচে মনের মত ডোমেইন হোস্টিং কিনুন… ওয়েবসাইট বানাতে চান? স্বল্প খরচে মনের মত ডোমেইন হোস্টিং কিনুন…

ওয়েবসাইট বানাতে চান? স্বল্প খরচে মনের মত ডোমেইন হোস্টিং কিনুন… ওয়েবসাইট বানাতে চান? স্বল্প খরচে মনের মত ডোমেইন হোস্টিং কিনুন…

অনলাইন বিজ্ঞাপন

অনলাইন নিউজ পোর্টালে বিজ্ঞাপন নিন, সাইটের আয় বাড়ান দ্বিগুণ!

সম্মানিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল এডমিন/মালিকবৃন্দ! আপনাদের নিউজ পোর্টালে পর্যাপ্ত পরিমাণ বিজ্ঞাপন পৌঁছে দেওয়ার জন্য আমরা আমাদের এই সেবাটি নিয়ে কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছি। আশা রাখি, খুব শীঘ্রই পূর্ণাঙ্গ আকারে সেবাটি নিয়ে আমরা আপনাদের সামনে হাজির হতে পারবো। এতে সমস্ত অনলাইন নিউজপেপার মালিকরাই লাভবান হবেন, ইনশাআল্লাহ্‌। সে পর্যন্ত আমাদের সাথে থাকুন। …ধন্যবাদ।

বাংলা অ্যাডসেন্স

বাংলা ওয়েবসাইটে গুগোল অ্যাডসেন্স এর বিজ্ঞাপন নিন, ব্যাপক আয় করুন

ব্লগ বা ওয়েবসাইট থেকে আয়ের অন্যতম সেরা মাধ্যম হলো গুগল অ্যাডসেন্স।পৃথিবীব্যাপী লক্ষ লক্ষ ওয়েব মাস্টার গুগোল অ্যাডসেন্সের মাধ্যমে প্রচুর টাকা আয় করছেন। তবে এক্ষেত্রে যারা সফল এবং অধিক উপার্জনকারী, তারা বেশ কিছু কৌশল অবলম্বন করে থাকেন। গুগল অ্যাডসেন্স থেকে আয়ের ক্ষেত্রে অন্যদেরকেও তারা বেশ কিছু বিষয় মেনে চলার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। যে নিয়ম বা কৌশলগুলো মানলে অ্যাডসেন্স থেকে অনেক দীর্ঘ সময় ধরে ভালো পরিমাণ আয় করা সম্ভব।

গুগল অ্যাডসেন্সের আয় বাড়াতে এবং দীর্ঘ সময় ধরে অ্যাডসেন্স এর সাথে পার্টনারশিপ টিকিয়ে রাখতে হলে অবশ্যই কিছু সাধারণ নিয়ম বা পরামর্শ মেনে চলা জরুরী। এগুলো মেনে চললে একদিকে আয়ের পরিমান যেমন বাড়বে, তেমনি অ্যাডসেন্স বাতিল হওয়ারও সম্ভবনা কমে যাবে। কারণ অ্যাডসেন্স বাতিল হওয়ার বিষয়টিও পাবলিশারদের ভাবিয়ে তোলে।অ্যাডসেন্স বাতিল হওয়ার প্রধান কারণ হলো অ্যাডসেন্স সম্পর্কে সঠিক জ্ঞানের অভাব এবং অ্যাডসেন্স এর অপব্যবহার ইত্যাদি।

এদিকে বাংলাদেশী পাবলিশারদের জন্য একটি বড় সমস্যা হচ্ছে গুগোল অ্যাডসেন্স এর বাংলা কন্টেন্ট সাপোর্ট না করা। বাংলা কন্টেন্ট হওয়ার কারণে অনেক ভালো মানের পাবলিশারও অ্যাডসেন্স পাচ্ছেন না। ফলে তাঁদের আয়ের পরিমাণও সীমিত হয়ে পড়ছে। তবে কোন কোন পাবলিশার কিছু কলা-কৌশলে তাদের বাংলা সাইটে অ্যাডসেন্স ব্যবহার করে থাকেন। এক্ষেত্রে যে কোন মুহূর্তে অ্যাডসেন্স বাতিল হয়ে যাওয়ার অনিশ্চয়তা মাথায় ভর করে রাখে। 

বাংলাদেশে গুগোল অ্যাডসেন্স এর যাবতীয় বাস্তবতার কথা বিবেচনায় রেখে “অ্যাডসেন্স আইটি” চালু করেছে “অ্যাডসেন্স পার্টনারশিপ প্রোগ্রাম” 


“অ্যাডসেন্স পার্টনারশিপ প্রোগ্রাম” টি যাদের জন্য করা হয়েছেঃ 

  • যারা ইতোমধ্যে গুগোল অ্যাডসেন্স এর জন্য আবেদন করেছেন কিন্তু অনুমোদন পান নি 
  • যারা বর্তমানে অ্যাডসেন্স ব্যবহার করছেন, কিন্তু আয়ের পরিমাণ খুব কম
  • যাদের সাইট বাংলা হওয়ার কারণে যে কোন সময় অ্যাডসেন্স বাতিল হয়ে যাওয়ার আশংকায় আছেন
  • বাংলাদেশের যাবতীয় নামীদামী ব্লগ/নিউজ পোর্টাল, যারা অ্যাডসেন্স থেকে নিশ্চিন্তে আয় করতে চান

“অ্যাডসেন্স পার্টনারশিপ প্রোগ্রাম” এর আওতায় যে যে সেবা থাকছেঃ 

  • আপনার ওয়েবসাইটটি কে অ্যাডসেন্স ব্যবহারের উপযোগী করে তোলা (যদিও তা বাংলা কন্টেন্ট)
  • আপনার সাইটের মান/কোয়ালিটি নিশ্চিত করা
  • আপনার সাইটের জন্য গুগল অ্যাডসেন্স এর অ্যাড সরবরাহ করা
  • আপনার সাইটের বর্তমান ভিজিটর বাড়ানোর ব্যাপারে সঠিক পরামর্শ/সহযোগিতা দেওয়া 
  • আপনার সাইটের বর্তমান বিজ্ঞাপন আয় কে কয়েক গুণ বৃদ্ধি করা
  • আপনার ওয়েবসাইট এবং সাইটের অ্যাড লেয়াউট অপটিমাইজ করা
  • আপনার সাইট থেকে অ্যাডসেন্স এর আয় প্রতি মাসে শত ভাগ নিশ্চিত করা
  • সাইট কোন কারণে অ্যাডসেন্স হতে বাতিল হয়ে থাকলে তা আবার পুনর্বহাল করা
  • গুগল অ্যাডসেন্স সম্পর্কিত যাবতীয় বিষয়ে নিয়মিত পরামর্শ এবং প্রিমিয়াম সাপোর্ট প্রদান ইত্যাদি।

“অ্যাডসেন্স পার্টনারশিপ প্রোগ্রাম” এ অংশগ্রহণের যোগ্যতাঃ

  • আপনার ভালো/মোটামুটি ভালো মানের একটি ওয়েবসাইট থাকতে হবে
  • সাইটের প্রতিদিন কমপক্ষে ৫০,০০০ (পঞ্চাশ হাজার) ভিজিটর থাকতে হবে (বিগত এক মাসের এনালাইটিক্স রিপোর্টসহ)

* “আমরা অ্যাডসেন্স স্পেশালিষ্ট”। আমাদের মাধ্যমে আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট ব্যবস্থাপনা ও তদারকি করতে আমাদের সাপোর্ট সেন্টারে যোগাযোগ করুন। …ধন্যবাদ।

গুগোল অ্যাডওয়ার্ডস

গুগল এডওয়ার্ড এর মাধ্যমে আপনার পণ্যের বিজ্ঞাপন সর্বত্র ছড়িয়ে দিন

“গুগল এডওয়ার্ড” হল অনলাইনে বিজ্ঞাপন দাতাদের জন্যে গুগলের এক যুগান্তকারী টুল। যেখানে বিজ্ঞাপন এর জন্যে সঠিক এবং নিখুঁত ভাবে কাষ্টমার নির্বাচন করা যায়। “গুগল এডওয়ার্ড” এর মাধ্যমে কোন কোম্পানী বা প্রডাক্ট এর সাথে সার্চ রেসাল্ট এর মিল রেখে কোন নিদির্ষ্ট এলাকার জন্য সর্বোচ্চ ফলপ্রসূ বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করানো সম্ভব।

এ জন্য ক্লায়েন্টের চাহিদা ও বর্তমান মার্কেটের অবস্থা অনুযায়ী ক্যাম্পেইন সেটআপ করা জরুরী। ফলে এর সাথে অনেক গুলো বিষয় সম্পর্কিত। “গুগল এডওয়ার্ড” এর মাধ্যমে গুগলে একটি সফল বিজ্ঞাপন ক্যাম্পেইন চালু করার জন্য বিজ্ঞাপন দাতাকে অবশ্যই “গুগল এডওয়ার্ড” এ অভিজ্ঞ হতে হয়। অন্যথায় ক্যাম্পেইন থেকে ভালো ফল আশা করা যায় না।

এদিকে “গুগল এডওয়ার্ড” এ অভিজ্ঞ ব্যক্তিদের স্বীকৃতি স্বরূপ গুগল “এডওয়ার্ড সার্টিফিকেট” প্রদানেরও ব্যবস্থা রেখেছে। ফলে অনলাইনে বিজ্ঞাপন দেওয়ার ক্ষেত্রে একটি সফল ক্যাম্পেইন পরিচালনার জন্য একজন “গুগল এডওয়ার্ড সার্টিফাইড” এর সহযোগিতা নেওয়া যেতে পারে। 

বলার অপেক্ষা রাখে না যে, অনলাইনে অন্য যে কোন বিজ্ঞাপনী সংস্থা থেকে “গুগল এডওয়ার্ড” এর বিজ্ঞাপন ব্যবস্থাপনা অনেক বেশি উন্নত। এমনকি টিভি বিজ্ঞাপনের চেয়েও এটি লাভজনক ও কার্যকরী। তবে এর জন্য সঠিক ক্যাম্পেইন সেট আপ অত্যন্ত জরুরী। 

বাংলাদেশে অনলাইন বিজনেস এর ক্রমবর্ধমান পরিবেশে অনলাইনে বিজ্ঞাপন পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনার জন্য “অ্যাডসেন্স আইটি” চালু করেছে “এডওয়ার্ড ম্যানেজমেন্ট প্রোগ্রাম”


“এডওয়ার্ড ম্যানেজমেন্ট প্রোগ্রাম” যাদের জন্য করা হয়েছেঃ

  • যারা অনলাইনে নতুন বিজনেস চালু করেছেন 
  • যারা গুগল এডওয়ার্ড এর মাধ্যমে পণ্য বা কোম্পানির বিজ্ঞাপন করতে চান
  • যারা অনলাইন বিজ্ঞাপন দাতাদের প্রতিযোগিতায় নিজেদের কোম্পানি বা পণ্যকে শীর্ষে রাখতে চান
  • যারা অনলাইন বিজ্ঞাপন থেকে সর্বোচ্চ সেল এবং রেসপন্স পেতে চান

“এডওয়ার্ড ম্যানেজমেন্ট প্রোগ্রাম” এ যে যে সেবা থাকছেঃ

  • একটি উচ্চ মান সম্পন্ন ক্যাম্পেইন সেট আপ করা
  • গুগল এডওয়ার্ডস ক্যাম্পেইন পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনা
  • বিশ্বের যে কোন স্থান এবং কীওয়ার্ড টার্গেটেড ক্যাম্পেইন সেট করা
  • ক্যাম্পেইনে অন্যান্য প্রতিযোগীদের চেয়ে নিজেদেরকে শীর্ষে রাখা
  • ক্যাম্পেইন চলাকালীন বিজ্ঞাপনের আউটপুট তথা রিয়েল টাইম ডাটা প্রদান ইত্যাদি।

* “আমরা গুগল এডওয়ার্ড সার্টিফাইড”। আমাদের মাধ্যমে আপনার পণ্য বা কোম্পানির সফল বিজ্ঞাপনী ক্যাম্পেইন পরিচালনা করতে আমাদের সাপোর্ট সেন্টারে যোগাযোগ করুন। …ধন্যবাদ।

ফেসবুক বিজ্ঞাপন

ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দিন, পার্সোনাল এবং বিজনেস পেইজের লাইক বাড়ান

আজকাল টিভি, রেডিও, পত্রিকা ও অন্যান্য গণমাধ্যমের মত ফেসবুকও নির্দিষ্ট পণ্য বা কোম্পানির বিজ্ঞাপন ও প্রচার প্রচারণা করা হয়। ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দিয়ে মুহূর্তের মধ্যে নির্দিষ্ট পণ্যের কোম্পানি/ পেইজ/ ওয়েবসাইট/ পণ্যের বিজ্ঞাপন লাখো মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়া সম্ভব।

ফেসবুকের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন মুলত ডিজিটাল মার্কেটিং এরই একটি অংশ। সাধারণ বা গতানুগতিক মার্কেটিং এবং ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাঝে কিছু মৌলিক পার্থক্য রয়েছে। দিন যত গড়াচ্ছে পণ্যের বিজ্ঞাপন তথা মার্কেটিং পলিসি ততই ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রতি ধাবিত হচ্ছে। 

মানুষ এখন সাধারণত বেশীরভাগ সময়ই অনলাইন তথা ফেসবুকে থাকতে পছন্দ করে। শিল্পপতি হতে দিন মজুর প্রায় সবাই এখন ফেসবুক ব্যবহার করছে। ভাবতে অবাক লাগে, বাংলাদেশের মত তৃতীয় বিশ্বে চার কোটির অধিক মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করে! সুতরাং বলার অপেক্ষা রাখে না, বাংলাদেশের মার্কেটেও ফেসবুক মার্কেটিং এর একটি উর্বর ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে।

সাধারণ মার্কেটিং পদ্ধতির চেয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং পদ্ধতি বর্তমানে অধিক ফলপ্রসূ ও কার্যকর। এর কারণ হলো, ডিজিটাল মার্কেটিং এ নির্দিষ্ট পণ্য বা সেবাটি যে কমিউনিটিকে টার্গেট করে করা হয়েছে, ঠিক সেই কমিউনিটির লোকদের দেশ, স্থান, বয়স, লিঙ্গ, আগ্রহ ইত্যাদি ভেদে টার্গেট করা যায়। কাস্টমারদের খুব সহজে ফিল্টারেট এবং টার্গেট করা যায় বলে এখানে সময় এবং অর্থের অপচয় খুবই কম। যা সাধারণ মার্কেটিং পদ্ধতিতে কল্পনাও করা যায় না। 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য হলো, এটি অত্যন্ত কম খরচ, দ্রুত গতি সম্পন্ন এবং অধিক কার্যকরী । 

বাংলাদেশে ইন্টারনেটের ক্রমবর্ধমান পরিবেশে “ডিজিটাল মার্কেটিং সলিউশন” এর অংশ হিসেবে “অ্যাডসেন্স আইটি” চালু করেছে “ফেসবুক মার্কেটিং সার্ভিস”। 


♦ “ফেসবুক মার্কেটিং সার্ভিস” টি যাদের জন্য করা হয়েছেঃ

  • যারা স্বল্প খরচে অনলাইনে নিজেদের কোম্পানি বা পণ্যের বিজ্ঞাপন করতে চান।
  • খেলোয়াড়, রাজনীতিবিদ, লেখক, বুদ্ধিজীবী, শিল্পী, ভিআইপি ইত্যাদি নিজেদের নামে যারা ফেসবুক ফ্যান পেইজ করতে চান
  • যারা বিভিন্ন প্রচার প্রচারণার উদ্দেশ্যে বড় আকারে ফেসবুক ফ্যান পেইজ তৈরি করতে চান
  • যারা ই-কমার্স বা অনলাইনে পণ্য বিক্রি করতে চান তাঁদের জন্য।

♦ “ফেসবুক মার্কেটিং সার্ভিস” টিতে যে যে সেবা অন্তর্ভুক্ত রয়েছেঃ 

  • ব্যবসায়িক অথবা ব্যক্তিগত ফেসবুক পেইজের লাইক বাড়িয়ে দেয়া
  • ফেসবুকের মাধ্যমে নির্দিষ্ট সেবা বা পণ্যের বিজ্ঞাপন দেয়া
  • ক্ষেত্র বিশেষে ফেসবুক পেইজটিকে “ভেরিফাইড” করে দেয়া।
  • ফেসবুক পেইজের সর্বাত্মক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।

* “আমরা ফেসবুক প্রফেশনাল”। আমাদের মাধ্যমে ফেসবুকে আপনার ব্যবসা, পণ্য বা সেবা ইত্যাদির প্রোমোশন করতে আমাদের সাপোর্ট সেন্টারে যোগাযোগ করুন। …ধন্যবাদ। 

অনলাইন উদ্যোক্তা

অনলাইন ভিত্তিক তরুণ উদ্যোক্তারা সঠিক গাইডলাইন নিন, সফল ক্যারিয়ার গড়ুন

অনলাইন ভিত্তিক তরুণ উদ্যোক্তারা সঠিক গাইডলাইন নিন, সফল ক্যারিয়ার গড়ুন। অনলাইন ভিত্তিক তরুণ উদ্যোক্তারা সঠিক গাইডলাইন নিন, সফল ক্যারিয়ার গড়ুন। অনলাইন ভিত্তিক তরুণ উদ্যোক্তারা সঠিক গাইডলাইন নিন, সফল ক্যারিয়ার গড়ুন। অনলাইন ভিত্তিক তরুণ উদ্যোক্তারা সঠিক গাইডলাইন নিন, সফল ক্যারিয়ার গড়ুন। অনলাইন ভিত্তিক তরুণ উদ্যোক্তারা সঠিক গাইডলাইন নিন, সফল ক্যারিয়ার গড়ুন। অনলাইন ভিত্তিক তরুণ উদ্যোক্তারা সঠিক গাইডলাইন নিন, সফল ক্যারিয়ার গড়ুন। অনলাইন ভিত্তিক তরুণ উদ্যোক্তারা সঠিক গাইডলাইন নিন, সফল ক্যারিয়ার গড়ুন।